গ্যারী উইলস একজন আমেরিকান সাংবাদিক ও ইতিহাসবিদ। তিনি আমেরিকার প্রথম সারির একজন ধর্মীয় চিন্তাবিদও। প্রায় সারা জীবন খৃষ্টধর্ম নিয়ে লিখেছেন। পুলিৎজার পুরস্কারও পেয়েছেন। এই বইটিতে তিনি সবাইকে আমন্ত্রন জানাচ্ছেন কোরান পড়তে। তিনি প্রতিটি বাক্য এবং শব্দ বিশ্লেষন করেছেন।
কোরান কি শুধুই আরব দেশ বা মরুভূমি অঞ্চলের জন্য? কোরান কি একটি মহাজাগতিক একটি গ্রন্থ? কত শত নবী এসেছেন গেল লক্ষ্-হাজার বছরে? ইসলাম শান্তির না অশান্তির? জিহাদের আসল অর্থ কি? আপ্রাণ চেষ্টা করা? নাকি রক্তারক্তি যুদ্ধ? সঠিক পথ কি? ভয়? না ভক্তি? ব্যবসা নিয়ে কি বলা হয়েছে? বিয়ে বা বহু-বিয়ে, বা অতিবিয়ে – তা নিয়ে বিস্তর আলোচনা আছে।
বইটি তিনি লিখেছেন মূলত আমেরিকানদের জন্যে, যারা কোরান পড়েননি বলে তিনি মনে করেছেন। [আহারে! তিনি যদি জানতেন বেশিরভাগ মুসলমানরাও কোরান পড়েননি]। আমেরিকানদের মধ্যে যারা [তার মধ্যে অনেক রাষ্ট্র-নেতাও আছেন] কোরান নিয়ে ভুল তথ্য দিয়ে যাচ্ছেন প্রতিদিন, তাদের নাম উল্যেখ করে বলেছেন। কোরান অনেকের কাছে অবাস্তব মনে হতে পারে, তা নিয়েও গ্যারী উইলস বলেছেন। কোরান কি আসলেই সন্ত্রাসীদের নোটবই? তিনি তা নিয়ে ভেবেছেন। তিনি বলছেন, ‘আমরা তা জানতে পারবো না যদি আমরা কোরান না পড়ি।‘
গ্যারী কোরানকে দেখেছেন সহানুভূতির সাথে, উন্মুক্ত মন নিয়ে। তিনি দেখতে চেষ্টা করেছেন কেন এতো শতক ধরে কোরান এখনও শত-কোটি মানুষের নির্দেশিকা। তিনি কোরানের সাথে বাইবেল ও তরাহ’র মিল ও অ’মিলও দেখিয়েছেন।
#পড়তে_পড়তে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

Why do we keep waiting for the next disaster?

Five patients died at a five-star hospital when a makeshift ward caught fire on Wednesday …