Photo: BDNews24

মদন’দাকে মনে পড়ে…

তিনি জন্মেছিলেন আমার বাবার এক বছর পর। তারপরও তিনি আমার ভাই হয়ে গেলেন। একদিনের মধ্যেই। বাংলা নামের অধিকারী একজনকে ‘ভাই’ বলা এ’দেশে মুশকিল। তাই তিনি ‘দাদা’। আমি একা নই, সবাই তাঁকে “মদন’দা” বলেই ডাকতো। শুধু সাবির ভাই তাঁকে “মদন ভাই” বলে ডাকতেন।

মদন’দার আমার সাথে পরিচয় ১৯৯১ সালে। সবেমাত্র ডেইলী ষ্টার পত্রিকায় কাজ শুরু করেছি। বাবা-মা চোখ রাঙিয়ে বলে দিয়েছেন রিপোর্টার হওয়া যাবে না, রাত-বিরেতে বাড়ির বাইরে থাকা যাবে না। তথাস্তু। হতে হলো ফীচার-রিপোর্টার। কাজ ফীচার ও এডিটোরিয়াল বিভাগে। বাড়ি ফিরতে খুব বেশি তার হয় না। শিক্ষক চারজনঃ মাশুকুল হক, মদন শাহু, সাবির মুস্তাফা এবং ফয়েজা হক। প্রথম দিনই বুঝলাম একজন শেখাবেন কেমন করে পত্রিকায় ছাপার জন্যে পৃষ্ঠা তৈরী করতে হয়, আরেকজন বোঝাবেন কি করে অন্যের লেখায় কলম ঘষতে হয় আর দু’জন দেবেন লেখার কাজ।

এঁরা সবাই ‘ভাই’ এবং ‘আপা’।

মদন শাহু এবং মাশুকুল হক আমার বাবার বয়সী হলেও তাঁরাও আমার ভাই। প্রথম দিনই দু’টো দিক্ষা পেয়ে গেলাম। পেইজ-মেক-আপ এবং কলম ঘষা। সন্ধ্যায় ফয়েজা হক এক সঙ্গীতানুষ্ঠানে নিয়ে শেখাবেন কি করে তা কভার করতে হয়।

একদিন-দু’দিন করে যাচ্ছে। বেশিরভাগ কাজই মদন’দার সাথে।

সাতদিন গেলো।

তাঁর ছুটি শনিবার; আমার ছুটি নেই। সাতদিনের মাথায় শুক্রবার সন্ধ্যা আট’টার দিকে তিনি আমায় জানালেন তিনি রবিবারের সম্পাদকীয় পাতা পুরোটাই তৈরী করে রেখেছেন।

“কাল [শনিবার] সকালে আলী ভাই [এসএম আলী] তাঁর ‘অ্যাট্ হোম অ্যান্ড অ্যাব্রড্’ কলামটি টাইপ করে দেবেন, তা কম্পিউটার-কম্পোজ করিয়ে প্রুফ দেখে ছাপিয়ে দিতে হবে”।

শংকিত আমি। ভাবিঃ “মানুষটার সাহস কত”।

একটা পুঁচকে ছোড়াকে পুরো এডিটোরিয়াল পৃষ্ঠার দায়ীত্ব দিয়ে যাচ্ছেন! যদিও পৃষ্ঠার ডামি এঁকে দিয়েছিলেন, তারপরও…একজন পুঁচকে ছোড়াকে???

আমার ওপর আস্থা থাকার জন্যে আমি খুশিও হয়েছিলাম এবং একই সাথে মনও খারাপ হয়েছিলো সাতদিনের এক শিশুকে অথই সাগরে রেখে সাপ্তাহিক ছুটি নেয়ার জন্যে…

এডিটোরিয়াল পৃষ্ঠা রবিবার বেরিয়েছিল; আমিই বের করেছিলাম; কেমন করে বের করেছিলাম তা আরেকদিন জানাবো…এবং মদন’দাকে মনে রাখবো [আমার জীবনের] চিরদিন…

2 Replies to “মদন’দাকে মনে পড়ে…”

  1. It was nice to read your notes about your memory with Madan da. He was a wonderful human being. I also came in touch with him when I penned couple of features in the Daily Star. Thanks.

  2. মুন্না ভাই ,আপনার সাথে দেখা করতে গিয়ে আমিও পরিচিত হয়েছিলাম অসাধারণ মানুষ মদনদার সাথে ,Great memory…

Leave a Reply

Your email address will not be published.